Official Website of Khulna City CorporationOfficial Website of Khulna City Corporation

Latest News


দরিদ্র ও হতদরিদ্রদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ঔষধ হস্তান্তর

খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেছেন, পুষ্টি মানব দেহের জন্য অপরিহার্য্য। বিশেষ করে গর্ভবতী মায়েদের পুষ্টি নিশ্চিত করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অপুষ্টির কারণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায় এবং মা ও শিশুরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়। পুষ্টির চাহিদা পূরণের মাধ্যমে দরিদ্র মা ও শিশুর সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে হবে।

সিটি মেয়র আজ (বৃহস্পতিবার) বেলা সাড়ে ১১টায় নগর ভবনে দরিদ্র ও হতদরিদ্রদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ঔষধ হস্তান্তরকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন। কেসিসি’র তত্ত্বাবধানে পরিচালিত নগর অংশীদারিত্বের মাধ্যমে দারিদ্র হ্রাসকরণ প্রকল্পের আওতায় নিউট্রেশন কার্যক্রমের ১৩৯ জন প্রমোটর ও ভলান্টিয়ারদের নিকট এ ঔষধ হস্তান্তর করা হয়। এ সময় সিটি মেয়র তাদের প্রত্যেককে একটি করে ভলান্টিয়ার ব্যাগও প্রদান করেন।

কেসিসি’র পুষ্টি কর্মসূচী দরিদ্র মায়েদের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে ভূমিকা রাখছে উল্লেখ করে সিটি মেয়র বলেন, দরিদ্র মায়েদের জন্য কল্যাণকর এ সকল কর্মসূচী বাস্তবায়নে সমাজের নানা কুসংস্কার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। এ প্রতিবন্ধকতা দূর করতে নিয়মিত উঠান বৈঠকের আয়োজন এবং হতদরিদ্র মায়েদের জীবন নিরাপদ রাখতে মা ও শিশুদের খোজ-খবর রাখার জন্য তিনি প্রকল্পের প্রমোটর ও ভলান্টিয়ারদের প্রতি আহবান জানান।

উল্লেখ্য, কেসিসি’র পুষ্টি কর্মসূচীর আওতায় নগরীর হতদরিদ্র পরিবারের গর্ভবতী, দুগ্ধদানকারী মা, ০-৫ বছর বয়সী শিশু, ১০-১৬ বছয়র বয়সী কিশোরী সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের পুষ্টির মানোন্নয়ন, বয়স ও সময় অনুযায়ী স্বাস্থ্যসম্মত আচরণ ও সঠিক খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলতে নিয়মিত পরামর্শ দান, মাতৃ ও শিশু মৃত্যু রোধে সহায়তা করা হয়। এছাড়া পুষ্টি উপকরণ হিসেবে তাদের মাঝে বিনামূল্যে আয়রন ফলিক এসিড, আয়রন ট্যাবলেট, কৃমিনাশক সিরাপ ও ট্যাবলেট বিতরণ করা হয়।

কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রকল্পের সদস্য সচিব তপন কুমার ঘোষ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে প্রকল্পের টাউন ম্যানেজার এ এইচ এম আকরাম হোসেন, প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ জামাল উদ্দিন, শহিদুল ইসলাম বাচ্চু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন নিউট্রেশন এক্সপার্ট নওরেশ চন্দ্র দাস।